1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১২:১০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পিআইও বিজন খরাতির বিরুদ্ধে জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ। কেশবপুরে কসাইয়ের ছুরিকাঘাতে পত্রিকা হকার গুরুতর আহত। কাহালুু উপজেলা মুরইল ইউনিয়ন তাঁতীলীগের এি- বাষিক সন্মেলন অনুষ্টিত। যশোরের কেশবপুরে উৎসবমূখর ও শান্তিপূর্ন পরিবেশে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। হিজলায় পিতৃপরিচয়ের ভয়ে গর্ভের সন্তানকে হত্যা। বরগুনা’য় মাদক দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার অপরাধে এলাকা বাসী ও ভূক্তভোগী পরিবারের মানববন্ধন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মুকুল বোসের প্রয়ানে শোক। যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী বিচারপতি কেতানিজ ব্রাউন জ্যাকসন শপথ গ্রহণ। ভারতে ভূমিধসে মৃত্যু বেড়ে ৮১, নিখোঁজ অনেকে জুনে ধর্ষণের শিকার ৭৬

একজন সফল ও জনবান্ধব উপজেলা চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২০ জুন, ২০২২
  • ২০ বার পঠিত

তানজিমুন রিশাদ।
প্রতিটি মানুষের স্বপ্ন থাকে। কিন্তু স্বপ্নের পথে পা বাড়ালেই একের পর এক আসতে থাকে প্রতিবন্ধকতা। যে ব্যক্তি এসব প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে এগিয়ে যাবেন তিনিই হবেন সফল। আজ এমনই একজন সমাজ সেবককে নিয়ে কথা বলব। যিনি অনেক বাধা ও প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে একজন সফল জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত।তিনি হলেন ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি,দুর্দিনের কাণ্ডারি ঝালকাঠি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খান মোঃ আরিফুর রহমান । সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন। তারপরও মানুষের প্রত্যাশা থাকে।তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই ইউপি সদস্য সদস্যাদের সার্বিক সহযোগিতা,দিক-নির্দেশনায় সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সরকার ঘোষিত কার্যক্রম প্রতিটা ইউনিয়নের উন্নয়নে সফলভাবে সম্পাদন করে আসছেন। বিভিন্ন জনসেবা প্রদানের মাধ্যমে সফল ও জনবান্ধব উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে অধিষ্ঠিত হয়েছেন। অত্র উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে সর্বস্তরের জনসাধারণ দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে রয়েছে তার সু সম্পর্ক। তিনি সদর উপজেলার উন্নয়নে সকলের দোয়া, সহযোগিতা ও পরামর্শ চেয়েছেন ।

এছাড়াও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতামূলক কাজ করে দলমত নির্বিশেষে তিনি সকলের মধ্যে আস্থা অর্জন করেছেন।
বিনামূল্য চালু রেখেছেন ফ্রি এম্বুলেন্স স্কুল কলেজ সেবা,মসজিদ মাদরাসা উন্নয়ন, এলাকার আইন-শৃংখলা রক্ষায় এবং জনগনের সেবায় কাজ করে যাচ্ছে।
প্রতিমাসে মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে তার নির্বাচিত এলাকার সার্বিক উন্নয়নে নানা বিষয়ে আলোচনা হয়ে থাকে। এমনকি উপজেলা পরিষদে বরাদ্দকৃত টিআর, কাবিখা-টাবিখা,কর্মসৃজন প্রকল্প, এলজিএসপি, ওয়ান পারসেন্ট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বেঞ্চ, কমিউনিটি ক্লিনিকে ফ্যান, চেয়ার, আলমারি, অবহেলিত রাস্তাঘাট সংস্কার ও জলাবদ্ধতা দূরীকরণে ব্রীজ ও কালভার্ট নির্মাণে স্বচ্ছতার পরিচয় দিয়েছেন। জনগণের আস্থাভাজন পরিশ্রমী বিচক্ষণ উপজেলা চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান উপজেলাবাসীর সার্বিক উন্নয়নে নিজেকে উৎসর্গ করতে চান।

কোন টাকা ছাড়া সাধারনমানুষের মাঝে দিয়েছেন অসংখ্য নলকূপ তার অভিজ্ঞতা রয়েছে অনেক। এসকল সফল মানুষের পেছনে আছে কিছু গল্প,তা অনেকটা রূপকথার মতো। আর সে সব গল্প থেকে মানুষ খুঁজে নেয় স্বপ্ন দেখার সম্বল,এগিয়ে যাওয়ার জন্য নতুন প্রেরণা। দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে।

রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান,সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার সাথে দলের ভাবমূর্তির উন্নয়নও হয়েছে। অসংখ্য মসজিদ,মাদ্রাসা, স্কুল-কলেজ ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক সমাজসেবী তিনি। ব্যক্তি জীবনে তিনি অত্যন্ত নম্র,ভদ্র,সদাহাস্যোজ্জ্বল,সুশিক্ষায় শিক্ষিত ও সাদা মনের মানুষ। তাঁর মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি দলমত নির্বিশেষে আজ সকলের কাছে প্রিয়। কাজ করছেন নৌকার জন্য। সর্বোপরি কাজ করছেন সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য।

এই সফল মানুষটি দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে প্রতিটি মানুষের বিপদ আপদে ছুটে যান। এলাকায় তিনি একজন সাদা মনের উদার মানসিকতার ও দানশীল মানুষ হিসেবে ইতিমধ্যে পরিচিতি লাভ করেছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের মতে, আমরা নেতা বা চেয়ারম্যান বুঝিনা। আরিফ ভাই একজন ভাল মানুষ। তিনি একজন কর্মঠ ব্যক্তি। আমাদের দু:খ দুর্দশায় তাঁকে সহজেই পাশে পাওয়া যায়।ইতোমধ্যে তিনি সমাজের সকল মতাদর্শের মানুষের কাছে একজন দক্ষ, পরিশ্রমী ও মেধাবী সমাজ সেবক হিসাবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন। নির্বাচনকালীন সময়ে সাধারণ জনগনকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করে একজন সফল ও জনপ্রিয় উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে সবশ্রেনীর মানুষের অন্তরে স্থান করে নিয়েছেন। তিনি এই উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর মাত্র কিছু দিনের মাথায় তার প্রিয় উপজেলা কে উন্নয়নের মাষ্টার প্লানের আওতায় এনে ব্যাপক উন্নয়ন মূলক কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। মেধা,মনন, কর্ম প্রয়াস, শ্রম ও অধ্যাবশায়ের মাধ্যমে ব্যবস্থাপনাগত দক্ষতা অর্জনের মধ্য দিয়ে তিনি নিজেকে গড়েছেন পরিশীলিতভাবে এক উজ্জ্বল অধ্যায়ে।

এলাকার গরীব দুঃখী মানুষের পাশে থেকে তিনি সব সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। গরীব মেহনতী মানুষের প্রকৃত জনদরদী হিসেবে তিনি এলাকায় ব্যাপক পরিচিত ও জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ঝালকাঠি-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আমির হোসেন আমু এমপি এর সহযোগিতা নিয়ে এলাকার উন্নয়নে মহা-পরিকল্পনা গ্রহন করেছেন। গৃহিত পরিকল্পনার আলোকে তিনি একের পর এক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন।

আরো জানা গেছে,চেয়ারম্যান হওয়ার আগে থেকেই অসহায় মানুষের পাশে থেকে সবসময় কাজ করেছেন। মানুষের সকল বিপদ আপদে সবসময় তাদের পাশে থেকে কল্যাণমূলক কাজ করে যেতেন। এমনকি স্কুল,কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোন অসহায় ও গরীব ছাত্র/ছাত্রীদের বই কেনা থেকে শুরু করে ভর্তি এমনকি পোশাক পর্যন্ত কিনে দেন। মেডিকেল ভর্তি করা থেকে শুরু করে পড়ালেখার যাবতীয় খরচ বহনও করেছেন খান আরিফুর রহমান। করোনার মহামারীতে তিনি সরকারি ত্রাণের পাশাপাশি নিজ তহবিল থেকে অসহায় ও দরিদ্র মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করাসহ সমাজসেবামূলক কার্যক্রমের সাথে এখনও আছেন ভবিষ্যতেও একইভাবে কাজ করে যাবেন।

সাংবাদিকদের সাথে একান্ত আলাপকালে উপজেলা চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান জানান,উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনপদের খেটে খাওয়া মানুষের ভালোবাসায় আমি ধন্য,সারাজীবন মানুষের কল্যাণে ও উন্নয়নে কাজ করতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা