বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
Logo সৈয়দকাঠীতে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রাজ্জাক মাস্টার আনারস প্রতীক পেয়েছেন Logo মনোনয়ন না পেলেই একে অপরকে রাজাকার বানাতে ব্যস্ত ঃ ওবায়দুল কাদের। Logo ঠাকুরগাঁওয়ের সেই তেলের ঘানি টানা দম্পতিকে গরু ও অর্থ উপহার দিলেন- জেলা প্রশাসক Logo বরিশাল লঞ্চঘাটে থ্রি হুইলার থেকে সুমনের চাঁদাবাজি বন্ধের প্রতিবাদে মানববন্ধন Logo শিকলে বাঁধা মৌসুমি এখন স্বাভাবিক জীবনে। Logo আসন্ন ইউপি নির্বাচনে বাকেরগঞ্জ নিয়ামতি ইউনিয়নে ১ নং ওয়ার্ডে জনমত জরিপে এগিয়ে রয়েছেন বাবুল আকন। Logo ঠাকুরগাঁওয়ে ঐতিহ্যবাহী টাংগন ব্যারেজের গেট উত্তলন। Logo কর্মহীন হয়ে পড়েছেন লেবুখালী ফেরিঘাট কেন্দ্রিক জীবিকা নির্বাহকারী শতাধিক ফেরিওয়ালা ও টং দোকানদার ব্যবসায়ীরা। Logo বরিশাল বানারীপাড়া থানায় পিতা ও পুত্রের বিরুদ্ধে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ। Logo রুহিয়া ইউপি নির্বাচনে আবারও মনিরুল হক বাবুকে নৌকার কান্ডারী দেখতে চায় ইউনিয়নবাসী ।

কঠোর লকডাউনে শিথিল বরিশালের অলি-গলি!

দৈনিক আলোকিত প্রভাত / ২৯ বার পঠিত
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১, ২:৫৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :: গত ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগষ্ট পর্যন্ত সরকারি নির্দেশে দেশব্যাপী চলছে সর্বাত্মক কঠোর লকডাউন। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ ও সরকারি বিধিনিষেধ মানতে দেশের সব জায়গায় চলছে কঠোর লকডাউন কর্মসূচি। এ কর্মসূচি বাস্তবায়নে মাঠে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী, পুলিশ ও বিজিবির সদস্যরা।

সরেজমিনে লকডাউনের সংবাদ সংগ্রহে গেলে দেখা যায়, নগরীর বিভিন্ন চেকপোস্ট ও মূল সড়কগুলোতে প্রশাসনের কঠোর নজরদারিতে জনসমাগম ও লোকজনের আনাগোনা খুবই কম। কিন্তু নগরীর বাজারগুলোতে ও অলিগলিতে মানুষের অহেতুক ঘোরাফেরা আড্ডাবাজি চলছে অহরহ।

বিশেষ করে পাড়া-মহল্লার বিভিন্ন অলিগলি ও সাব রোডগুলোর চায়ের দোকানগুলি খোলা থাকায় মানুষের জনসমাগম লক্ষ্য করা যায়। বিভিন্ন জায়গায় অহেতুক বসে থাকা মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, লকডাউনে তাদের কাজ কাম নাই, ঘরে কতক্ষণ আর বসে থাকবে তাই চা’র দোকানে বসে একটু সময় পার করেন অনেকে। এক লোক বলেন আমি মাহেন্দ্র গাড়ি চালাই কিন্তু ললকডাউনে গাড়ি বন্ধ থাকায় আমার কোন কাজ নাই এখন।

অন্যদিকে নগরীর বাজারগুলোতে মানুষের জনসমাগম ছিল চোখে পড়ার মতো। বিশেষ করে মাছের বাজার ও সবজির বাজারে মানুষের ভিড় ছিল অধিক। মানুষের এই অহেতুক বাজারে ও রাস্তায় ঘোরাফেরার ফলে দিন দিন বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতিদিন মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে বিভিন্ন জনকে আর্থিক জরিমানা করা হলেও কমছেনা বাহিরে মানুষের জনসমাগম। স্বাস্থ্যবিধদের মতে বরিশালে প্রতিদিন যে হারে করোনা রোগী বাড়ছে তাতে সবার সচেতন হওয়া খুবই জরুরী। তা না হলে অবস্থা আরো ভয়াবহ রূপ ধারণ করবে। তাই সবার উচিৎ সরকারি নির্দেশনা মেনে লকডাউনের এই সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে থাকা।

বরিশালে লকডাউন বাস্তবায়নে দায়িত্বরত কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার সাথে কথা বললে তারা বলেন, আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করছি মানুষের মাঝে করোনা সচেতনতা বৃদ্ধি করা, স্বাস্থ্যবিধি মানা ও সব জায়গায় মানুষের জনসমাগম প্রতিরোধ করা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD