1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৯:৪৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঝালকাঠিতে গ্রামীন ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার’র দূর্নীতির মামলায় ১০বছরের কারাদন্ড। তালতলী ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিজয়। কাহালুতে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে, বিনামূল্য সার বীজ বিতারন। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাহিত্য সম্মেলন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে লেখক হিসেবে সম্মাননা ক্রেস্ট পেল সাংবাদিক বাচ্চু। কেশবপুরের বাঁশবাড়িয়া বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন। নেত্রকোনার সুলতানকে দেখতে মানুষের ভিড়। জন্মনিবন্ধন সনদে অতিরিক্ত টাকা আদায়,সুবিদপুর উদ্যোক্তার সাথে স্থানীয় জনতার হাতাহাতি। কাহালুতে প্রাণী সম্পদ অফিসে খামারীদের মধ্যে গরু,ছাগল বিতরণ। প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে নিয়ে ব্রাসিলিয়ায় পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন উদযাপন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল অসহায় শিশু তানিশার দায়িত্ব নিলেন পুলিশ সদস্য জীবন মাহমুদ।

কলাপাড়ায় জামাইকে জমি লিখে না দেওয়ায় বৃদ্ধ শাশুড়িকে বেধরক মারধর

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২১
  • ৯৯ বার পঠিত

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ঃ
কলাপাড়ায় জামাই ইসমাইল খাঁ’কে শ্বশুরবাড়ি’র জমি লিখে না দেওয়ায় বৃদ্ধ শাশুড়ি সুফিয়া বেগম (৮০) কে বেধরক মারধর করে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।আহত সুফিয়া বেগম পৌর শহরের বাদুরতলী এলাকার একুশে সড়কের মৃত মোসলেম খানের স্ত্রী।

শুক্রবার (২৭ আগষ্ট) দুপুর ১ টায় পৌর শহরের বাদুরতলী এলাকার একুশে সড়কে এ ঘটনাটি ঘটে।এ ঘটনায় আহত সুফিয়া বেগম ছেলে শনিবার ২৮ আগষ্ট কলাপাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ইসমাইল খাঁ শ্বশুরবাড়িতে জোর করে ঘর তুলে বসবাস করে আসছে। বিভিন্ন সময় ইসমাইলকে ঘর নিয়ে যাওয়ার জন্য বলা হলে সে যাচ্ছিল না। ওই ঘরের জমি নিজের নামে লিখে দিতে শাশুড়িকে বলে। এতে রাজি না হওয়ায় ঘটনা দিন ইসমাইল খাঁ ও তার ছেলে নাঈন এবং ফেরদৌস মিলে কিল, ঘুসি, চর, থাপ্পর দিয়ে বৃদ্ধ সুফিয়া বেগমকে জখম করে।

এ সময় সুফিয়া বেগমকে বাঁচাতে এসে তার ছেলে সোহরাব (৩৪) ও ছেলের বউ শাহিদা (২০) কেও বেধরক মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে।

আহত সুফিয়া বেগমের ছেলে সোহরাব বলেন, ইসমাইল খাঁ আমার বড় বোনের জামাই। সে কলাপাড়া থানার কথিত সোর্স পরিচয় দিয়ে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়ে। কয়েক মাস আগে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয়ে জেলহাজতে ছিল, জেল থেকে বেরিয়ে আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তার জন্য আমাদের বাড়ি থেকে যেতে বলা হয়। কিন্তু বাড়ির জমি নিজের দাবি এবং নিজের নামে লিখে দিতে বলে। এতে রাজি না হওয়ায় আমি সহ আমার মা ও স্ত্রী কে কিল, ঘুসি, চর, থাপ্পর মারে। এতে তারা রক্তাক্ত জখম হন।

বর্তমানে সুফিয়া বেগম কলাপাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েন।এ ব্যাপারে কলাপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. আসাদুর রহমান জানান, তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা