1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নেত্রকোনায় জঙ্গি সংগঠনের নারী সদস্য আটক। কলাপাড়ায় অরজগতা রুখতে শক্ত অবস্থানে কলেজ ছাত্রলীগ। সমুদ্রের তীরে নিখোঁজ পর্যটক ফিরোজ কে খুঁজছেন শাশুড়ি, ২৪ঘন্টা মেলেনি সন্ধান। আটপাড়ায় বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত। কেশবপুরের মঙ্গলকোটে রংধনু আর্ট একাডেমির শুভ উদ্বোধন। বাকেরগঞ্জের এসিলেন্ট আবুজর মোঃ ইজাজুল হকের কারিশমায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ। বসতঘর থেকে কলেজ-ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার। রাজশাহীর মোহনপুরে প্রাইভেটকার ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ। কাহালু’র দূর্গাপুর ইউ পি নির্বাচনে চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। প্রেমিক’র বিয়ের খবরে প্রেমিকার আত্নহত্যা ।

ঝালকাঠি কাঠালিয়ায় গৃহবধুকে ধর্ষণ চেষ্টাকালে পুলিশের এসআইকে কুপিয়ে জখম।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৬ এপ্রিল, ২০২২
  • ২১ বার পঠিত

ঝালকাঠি প্রতিনিধি।
কাঠালিয়া উপজেলার তারাবুনিয়া পুলিশ ক্যাম্পের এসআই আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে এক গৃহবধুকে ধর্ষণ চেষ্টাকালে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এক পুলিশের এসআইকে জখম করেছে বলে জানা গেছে। ঘটনার পর থেকে তাকে ক্যাম্পে দেখা যায়নি। জানা গেছে এসআই আলমগীর অজ্ঞাত স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছে। কাঠালিয়া উপজেলার চেচরীরামপুর গ্রামের ফারুক হোসেন হাওলাদারের স্ত্রী গৃহবধু মাকসুদা আক্তার নিপা।

পাটিখালঘাটা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ সাহিন হাওলাদার জানান,তারাবুনিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাথে ভুক্তভুগী ওই নারীর ভগ্নিপতির একটি চায়ের দোকান আছে। সেখানেই পরিচয় হয় এসআই আলমগীরের সাথে। গতকাল সোমবার রাতে এসআই আলমগীর সেই নারীর বোনের বাড়িতে প্রবেশ করে। সেখানে তাঁকে ধর্ষণ করায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে এসআই আলমগীরকে কুপিয়ে জখম করা হয়।

এদিকে একজন পুলিশ কর্মকর্তার দ্বারা এ ঘটনা শিকার হওয়া নারীকে পরিবারের সদস্যরা ভয়ে সাময়িক আড়াঁলে রাখেন। সেই সুযোগে পুলিশও ঘটনা আড়াঁল করার চেষ্টা করলে প্রাথমিক ভাবে বিষয়টি তেমন জানাজানি হয়নি। তবে আজ বুধ বার ভিকটিম ঝালকাঠি ও কাঠালিয়ার সাংবাদিকদের কাছে বিস্তারিত জানালে উপজেলা তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে কাঠালিয়া থানার ওসি মুরাদ আলী জানান,গত সোমবার রাত ৮ টার দিকে গৃহবধু মাকসুদা আক্তার নিপা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে জানায় তাকে ধর্ষন করা হয়েছে। খবর পেয়ে সেখানে গিয়েছি। তখন গৃহবধু জানায়,তাকে জোরপূর্বক ধর্ষন করায় কুপিয়ে আহত করে আলমগীরের মোবাইল রেখে দেয়া হয়েছে। যদিও মোবাইলটি সে দেখাতে পারেনি। ঘটনাস্থলে গিয়ে এসআই আলমগীরকে পায়নি কাঠালিয়া থানা পুলিশ।

ওসি মুরাদ আলী আরো বলেন, আমি রাতে ঐ মহিলাকে বলেছি সকালে ঝালকাঠি গিয়ে মেডিক্যাল করিয়ে কাঠালিয়া থানায় এসে লিখিত অভিযোগ করতে। মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত সে কোন অভিযোগ করেনি। এসআই আলমগীরের সাথে ঘটনার পর থেকে ওসির দেখা বা কথা হয়নি বলেও তিনি জানান।

এ প্রসঙ্গে কাঠালিয়া থানার তারাবুনিয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মাহাবুবুর রহমান বলেন, আমি এ ধরনের একটি ঘটনার কথা শুনেছি। কিন্তু আমি ছুটি শেষে মঙ্গলবার ক্যাম্পে ফেরার কারনে কিছুই জানিনা। তবে ক্যাম্পে এসআই আলমগীরকে পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা