1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১০:৫৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
একজন তরুণ হাফেজের বেঁচে থাকার জন্য আর্থিক সাহায্যের আকুল আবেদন। ঝালকাঠিতে গ্রামীন ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার’র দূর্নীতির মামলায় ১০বছরের কারাদন্ড। তালতলী ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিজয়। কাহালুতে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে, বিনামূল্য সার বীজ বিতারন। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাহিত্য সম্মেলন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে লেখক হিসেবে সম্মাননা ক্রেস্ট পেল সাংবাদিক বাচ্চু। কেশবপুরের বাঁশবাড়িয়া বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন। নেত্রকোনার সুলতানকে দেখতে মানুষের ভিড়। জন্মনিবন্ধন সনদে অতিরিক্ত টাকা আদায়,সুবিদপুর উদ্যোক্তার সাথে স্থানীয় জনতার হাতাহাতি। কাহালুতে প্রাণী সম্পদ অফিসে খামারীদের মধ্যে গরু,ছাগল বিতরণ। প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে নিয়ে ব্রাসিলিয়ায় পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন উদযাপন।

তালতলীতে সার সংকটে দিশেহারা কৃষকরা।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৮২ বার পঠিত

তালতলী প্রতিনিধি ঃ-
সারা-দেশের ন্যায়ে বরগুনার তালতলী উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় আমন ধানের চারা রোপণের মৌসুম চলছে।টাকা দিয়েও মিলছে না সার।মৌসুমের শুরুতেই সার-সংকট দেখা দিয়েছে।এতে ব্যাহত হচ্ছে ধানের উৎপাদন।জমিতে সার দিতে না পারায় কৃষক দের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।ডিলার ও বিক্রেতাদের দোকানে গিয়েও কৃষকরা সার পাচ্ছেন না।

সরেজমিনে দেখা গেছে,বাজারের খুচরা বিক্রেতারা সরকারি নিয়ম মেনে সার বিক্রয় করে আসছে।প্রতি বস্তা টিএসপি সারের দাম ১১৫০টাকা, ইউরিয়া সারের দাম ৮২০ টাকা, ডিএপি (ডাই-অ্যামোনিয়াম ফসফেট) ৮২০ টাকা,এমওপি (মিউরেট অব পটাশ) ৮০০ টাকা করে।সারের ডিলাদের মাধ্যমে কিনে খুচরা বিক্রেতারা ন্যায্য মূল্য সার বিক্রি করে থাকে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে,উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এবার আমন মৌসুমে হাইব্রিড ও স্থানীয় জাত মিলিয়ে ১৮ হাজার ৬৯০ হেক্টর জমিতে আবাদের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।আমন চারা কৃষকদের মাঝে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে।কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে উপজেলার কোথাও ইউরিয়া সার নেই। ভুক্তভোগী কৃষকরা শহর ও গ্রামের সারের ডিলার ও পাইকারী দোকানগুলোতে খুঁজে কোথাও সার পাচ্ছেন না।

জানা গেছে,সরকারি বিধি অনুসারে প্রতি ইউনিয়ন ভিত্তিক সারের ডিলার হতে পারবে।উপজেলার সাতটি ইউনিয়ন থাকলে ও ৬টি ইউনিয়নে সারের ডিলার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। শুধু মাত্র একটি ইউনিয়নের সারের ডিলার নেই।কিছু ডিলার আছে অন্য ইউনিয়ন বা উপজেলায় বাস করলেও ডিলার কোনো যাচাই -বাচাই ছাড়া নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।গত ১ সেপ্টেম্বর বরিশাল বাফার কর্তৃপক্ষেরঅনুকূলে টাকা জমা দিলেও তারা এখনো সার পায়নি। সার না পাওয়ায় তারা কৃষকদের সার দিতে পারছে না বলে জানান।

কৃষকদের অভিযোগ করেন,আমন মৌসুমের শুরু থেকেই সার সংকট দেখা দিয়েছে।সারের জন্য ডিলাদের কাছে গেলে বলে সার নেই।সময়মত সার জমিতে সার না দিতে পারলে অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে।সারের ডিলারাই খুচরা সার বিক্রেতাদের সার দিতে পারছে না।খুচরা কীটনাশক বিক্রেতাদের কাছে গেলেও সার পাওয়া যাচ্ছে না।কিছু কিছু খুচরা সার ও কীটনাশক বিক্রেতাদের কাছে গেলে কীটনাশক কিনলে সার দেওয়া যাবে।তা না হলে শুধু সার দেওয়া যাবে না।আমরা কৃষকরা আজ অসহায় হয়ে গেছি। কেউই বিষয়টি দেখছে না।

উপজেলা কৃষি অফিসার (অতিরিক্ত) জনাব মো. সিএম রেজাউল করিম বলেন,তালতলীতে সার না থাকায় সংকট দেখা দিয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে কৃষকদের কাছে সার সরবরাহ করার চেষ্টা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা