শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
Logo কৃষকের আঙিনায় সোনালি স্বপ্ন। Logo বিএমএসএফ হবে প্রকৃতই সাংবাদিকবান্ধব সংগঠনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। Logo নেতার সার্থকতা হয় তার কর্মে”। Logo ১২০ জনকে স্কুল ব্যাগ বিতরণ করেন কোডেকে এনজিও। Logo সিংড়ায় নৌকার মাঝি নাছিরের উঠান বৈঠক। Logo এইচ.এস.সি পরীক্ষা ২০২১ উপলক্ষে বারহাট্টা সরকারি কলেজে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। Logo চাকুরী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অসহায় মানুষদের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক পারভেজ। Logo বরিশালে পল্লিবিদ্যুতের খুটি ও সড়ক ও জনপদের পিলার দিয়ে দোকান ও পুকুর ঘাট নির্মাণ। Logo কাহালুতে খাদ্য গুদামে আমন ধান, চাল সংগ্রহের উদ্বোধন। Logo আসন্ন বাকেরগঞ্জ নিয়ামতি ইউনিয়ন নির্বাচন উপলক্ষে বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত।

দল বঞ্চিত করলেও জনগন বেইমানী করবেনা সেই বিশ্বাসেই মাঠে সরব দুর্গাপাশার আবুল বাসার।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত / ২৯ বার পঠিত
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২১, ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি।
দলের সাংগঠনিক কাজে প্রতিটি মুহূর্ত ছুটে বেড়ানো জননন্দীত চেয়ারম্যান দূর্গাপাশার আবুল বাশারকে নিশ্চিত দলিয় নমিনেশন থেকে বঞ্চিত করে স্বার্থন্বেসী কুচক্রী মহলের প্রচেষ্টায় অযোগ্য, অখ্যাত এক জনবিচ্ছিন্ন ব্যাক্তিকে দলীয় নমিনেশন দেওয়ায় ফুঁসে উঠতে শুরু করছে দূর্গাপাশা ইউনিয়নের সচেতন জনগন। তারা পূনরায় তাদের পছন্দের যোগ্য প্রার্থী আবুল বাসার শিকদারকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান। দলের চাপিয়ে দেওয়া ভুল সিদ্ধান্ত তারা মানতে নারাজ এমনটা অভিমত প্রকাশ করলে। নড়েচড়ে বসছেন দলের একনিষ্ঠ ত্যাগী মানুষ আবুল বাসার শিকদার। নেতাকর্মীদের অসংখ্য অনুরোধে দলিয় নমিনেশন না পেলেও নির্বাচনে অংশ নিতে যাচ্ছেন সৎ যোগ্য ও জননন্দিত গরীব দুঃখী মেহনতি মানুষের বন্ধু বাসার সিকদার। তিনি বলেন দল ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাকে বঞ্চিত করলেও দূর্গাপাশার জনগন ও আমার আস্থাভাজন নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা আমার সাথে বেইমানি করবেনা।
বাকেরগঞ্জে নদী বেষ্টিত দুর্গাপাশা ইউনিয়নের জননন্দিত সাবেক এ চেয়ারম্যান আবুল বাশার সিকদার পরিশ্রম ও ত্যাগের বিনিময়ে এলাকায় জনপ্রিয়তার দূর্গ গড়ে তুলছেন বহুদিন পূর্ব থেকেই। নিজে উপস্থিত থেকে এলাকার উন্নয়ন মূলক কাজে জড়িয়ে পাল্টে দিয়েছেন এলাকার সার্বিক চিত্র। বাকেরগঞ্জ উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার মধ্যে সব চেয়ে দূর্গম ইউনিয়ন দূর্গাপাশার অবহেলিত জনগোষ্ঠীর ভাগ্য উন্নয়নে তিনি রেখেছেন অফুরন্ত অবদান, তার একক প্রচেষ্টায় এলাকায় গড়ে উঠেছে অসংখ্য রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট, স্কুল, মাদ্রাসা ও সাইক্লোন শেল্টার। নদীর ভয়াবহতা থেকে ইউনিয়ন বাসীকে সুরক্ষা দিতে গড়েছেন দৈর্ঘ্য পাইলিং ও বাঁধ। সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য গড়ছেন অসংখ্য পাকা ঘাটলা ও সানিটেশন ব্যবস্থা। তার আমলে উল্লেখযোগ্য কাজের মধ্যে রয়েছে আঙ্গারিয়া সোহরাবদের বাড়ির সামনের ব্রীজ, জিরাইল মান্নান আকনের বাড়ির পাশের ব্রীজ, জিরাইল চেয়ারম্যান বাজার ব্রীজ, সেলিম ফকিরের বাড়ির সামনের ব্রীজ সহ ১৪/১৫ টা ব্রীজের কাজ সমাপ্তি ও ৯ টি ব্রীজের চলমান কাজ এর মধ্যে ৩ টি আছে গাডার ব্রীজ, নদী ভাঙ্গন কবলিত দীঘিরপাড়, ঘোষকাঠি, কাটাখালি এলাকার চিত্র পাল্টে দিয়েছেন নদীতে বিশাল এলাকায় বালুর বাঁধ নির্মাণ করে। পাঠকাঠি জালাল হাওলাদার বাড়ি থেকে নাসির খানের বাড়ির রাস্তা, গোবিন্দপুর আখড়া বাড়ির সামনে থেকে দর্জি বাড়ির মাদ্রাসা পর্যন্ত রাস্তা সহ বিভিন্ন রাস্তাঘাট ডিপিপিতে অন্তর্ভুক্ত করে ভবিষ্যতের পথ উন্মুক্ত করছেন, করোনা মহামারীতে সবাই যখন নিজের চিন্তায় বিজি সে মুহূর্তে নিজের জীবন বাজি রেখে নিজ হাতে সেবা করে বেড়িয়েছেন ইউনিয়নের একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে, নিজ ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এলাকার মানুষের মাঝে বিলিয়েছেন আকাতরে, প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার সামগ্রী নিজ হাতে টেনে তুলে দিয়েছেন অসহায় মানুষের হাতে। এলাকার উন্নয়ন ও সাধারণ মানুষের সেবার মহৎ ব্রীত নিয়ে তিনি দলমত নিবিশেষে সবার জন্য খেটে গেছেন নিঃস্বার্থ ভাবে। কাজ পেতে তিনি ছুটে বেড়িয়েছেন প্রতিটি দপ্তর থেকে দপ্তরে, লবিং তদবিরে সমস্ত উপর্জন ব্যায় করে। এলাকার উন্নয়নে কাজ করে গেছেন।

গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতিকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন তিনি।
শুরু থেকেই লেগে থাকা প্রতিপক্ষের সরযন্ত্রের জাল ছিন্ন করে বিগত পাঁচ বছরে সকল চক্রান্তের মোকাবিলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সকল সেবা গ্রামীন জনগোষ্ঠির কাছে পৌছে দিয়েছেন শতভাগ স্বচ্ছতা বজায় রেখে। এছাড়াও অবহেলিত দূর্গাপাশা ইউনিয়নকে নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করতে কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। যে কারণে এলাকার সাধারণ মানুষের কাছে আবুল বাশার হয়ে উঠেছেন বিশ্বস্ত ও জনপ্রিয়। এলাকাবাসী মনে করেন আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবুল বাশারের যোগ্য সমকক্ষ কোনো বিকল্প নেই, তাই তারা আবারও দূর্গাপাশার প্রতিনিধি হিসেবে তাকেই পূনরায় চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান।

তার এই জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে তাঁর প্রতিপক্ষ কোনো সূত্র খুঁজে না পেয়ে নেমে পরছেন জগন্য মনগড়া মিথ্যাচার ও কল্প কাহিনীতে, একই সাথে গণমাধ্যম কর্মীদের ভুল তথ্য পরিবেশন করে লিপ্ত রয়েছেন চরম স্বরযন্ত্রে। তাদের সেই প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই তার বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে তার অপূরণীয় ক্ষতি করেন কতিপয় বিপদগামী দলীয় সুবিধাভুগী চক্র। আর শেষ মূহুর্তে তারাই দলিয় নমিনেশন পেয়ে ধরাকে সরা জ্ঞান করতে বহিরাগত লোকজন নিয়ে মটর মহড়া সহ এলাকায় আতংকের পরিবেশ সৃষ্টির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এতসত্বেও আবুল বাশার সিকদার জানান, “মানুষ ভুল ত্রুটির বাইরে নয়, বিগত দিনে আমি আমার সকল প্রচেষ্টা বজায় রেখে মানুষের সেবা করছি। দল ও এলাকায় জনগণ চাইলে আমি আবারও দূর্গাপাশার মানুষের সেবা করতে চাই। আমার কোন ভুল থাকলে শুধরে নেয়ার সুযোগ দিন। আসুন দেশের স্বার্থে এলাকার উন্নয়নে অবদান রেখে সাধারণ মানুষের কল্যানে কিছু করি। ক্ষমতা আল্লাহর নেয়ামত তিনি তা যাকে ইচ্ছে দান করবেন। এ বিষয় নিয়ে আমি বিচলিত নয়। আমার জন্য দোয়া করবেন। আমি যাতে অমৃত্যু সুখে দুঃখে আপনাদের পাশে থেকে নিঃস্বার্থ ভাবে আপনাদের সেবা করে যেতে পারি। একইসাথে তিনি সকল স্বরযন্ত্র থেকে সবাই কে সচেতন থাকতে আহবান জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD