1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৫:২১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা রাজশাহী বিভাগ’র নবনির্বাচিত কমিটির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত। রাজশাহীর বাঘায় আলোচিত পাঁচ টাকার হোটেল মালিক আর নেই। নলছিটিতে মাদ্রাসা ছাত্রী অপহরণের এক মাসেও উদ্ধার হয়নি, উল্টো দু’টি মামলা। মান্দার এক রুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত। বরগুনায় গণহত্যা দিবস ২৯ ও ৩০শে মে। নেত্রকোনায় জঙ্গি সংগঠনের নারী সদস্য আটক। কলাপাড়ায় অরজগতা রুখতে শক্ত অবস্থানে কলেজ ছাত্রলীগ। সমুদ্রের তীরে নিখোঁজ পর্যটক ফিরোজ কে খুঁজছেন শাশুড়ি, ২৪ঘন্টা মেলেনি সন্ধান। আটপাড়ায় বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত। কেশবপুরের মঙ্গলকোটে রংধনু আর্ট একাডেমির শুভ উদ্বোধন।

প্রবীণ রাজনীতিবিদ ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক জুবেদ আলী আর নেই।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২২
  • ২৯ বার পঠিত

রিপন কান্তি গুণ,নেত্রকোনা,বারহাট্টা প্রতিনিধি।

বৃহত্তর ময়মনসিংহের প্রবীণ রাজনীতিবিদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর, আইনজীবী, নেত্রকোণা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) আসনের চার বারের সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক অ্যাডভোকেট এম জুবেদ আলী (৯২) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে ময়মনসিংহ শহরের নেক্সাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ (৩০ এপ্রিল) শনিবার দুপুর পৌনে ১টায় এম জুবেদ আলী মারা যান। মৃত্যুকালে তিনি দুই ছেলে, তিন মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

এম জুবেদ আলীর ভাগিনা কেন্দুয়া উপজেলার কান্দিউড়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান,শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জন্মভূমি নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়নের কাউরাট গ্রামের বাড়িতে এম জুবেদ আলীর প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। রাত সাড়ে ৯টায় কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে দ্বিতীয় জানাজা হবে। পরে আগামীকাল ১লা মে রবিবার সকাল ১০টায় ময়মনসিংহ জেলা আইনজীবী সমিতি ও ১১টায় আঞ্জুমান ঈদগাহ মাঠে জানাজা শেষে গোলকিবাড়ি কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হবে।

প্রবীণ এই আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যুতে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ও নেত্রকোণা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও নেত্রকোণা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিলসহ নেত্রকোণা জেলা ও কেন্দুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে।

এম জুবেদ আলী ১৯৩০ সালের ২৫ ডিসেম্বর নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কাউরাট গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা আরফান আলী মুন্সি এবং মা ময়মনজান বিবি। এম জুবেদ আলী ১৯৪৬ সালে কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজ থেকে ১৯৪৯ সালে এইচএসসি এবং ১৯৫২ সালে জগন্নাথ কলেজ থেকে স্নাতক পাস করেন। শিক্ষাজীবন শেষে তিনি কিছুদিন শিক্ষকতা ও সরকারি চাকরি করেন। ১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে এলএলবি পাস করে ১৯৬২ সালে আইন পেশায় যোগ দেন। রাজনীতিতে যুক্ত হয়ে তিনি ময়মনসিংহ পৌরসভায় কমিশনার নির্বাচিত হন। ১৯৭০ সালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন পূর্বপাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হন। এছাড়াও মুক্তিযুদ্ধকালে এম জুবেদ আলী অ্যাডমিনিস্ট্রিয়াল কাউন্সিলের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭১ সাল থেকে পাঁচ বছর ময়মনসিংহ জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন সংস্থা এবং জেলা সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালের ৪ নভেম্বর সংসদে গৃহীত বাংলাদেশের সংবিধান প্রণনয় ও সংবিধানে স্বাক্ষর করেন এম জুবেদ আলী। ১৯৭২ হতে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত নেত্রকোনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। ১৯৭৩ সালের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তৎকালীন ময়মনসিংহ-২৪ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৬ সালে নেত্রকোনা-৪ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) এবং ১৯৯১ সালে নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে ও ২০০১ সালের সংসদ নির্বাচনে তিনি নেত্রকোনা-৩ আসন থেকে পরাজিত হয়েছিলেন। ১৯৯৩ সালে সংসদ সদস্য হিসেবে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে ইন্টারপার্লামেন্টারি কনফারেন্সে বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসেবে যোগদান করেন।

এম জুবেদ আলী ময়মনসিংহ জেলা আইনজীবী সমিতির ১১ বার সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি ছিলেন। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে তিনি ৬ দফা আন্দোলন,ভাষা আন্দোলন,১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণসহ তৎকালীন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা