1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পিআইও বিজন খরাতির বিরুদ্ধে জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ। কেশবপুরে কসাইয়ের ছুরিকাঘাতে পত্রিকা হকার গুরুতর আহত। কাহালুু উপজেলা মুরইল ইউনিয়ন তাঁতীলীগের এি- বাষিক সন্মেলন অনুষ্টিত। যশোরের কেশবপুরে উৎসবমূখর ও শান্তিপূর্ন পরিবেশে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। হিজলায় পিতৃপরিচয়ের ভয়ে গর্ভের সন্তানকে হত্যা। বরগুনা’য় মাদক দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার অপরাধে এলাকা বাসী ও ভূক্তভোগী পরিবারের মানববন্ধন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মুকুল বোসের প্রয়ানে শোক। যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী বিচারপতি কেতানিজ ব্রাউন জ্যাকসন শপথ গ্রহণ। ভারতে ভূমিধসে মৃত্যু বেড়ে ৮১, নিখোঁজ অনেকে জুনে ধর্ষণের শিকার ৭৬

বন্যার পানি কমতে শুরু করলেও বাড়ছে দুর্ভোগ।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২২ জুন, ২০২২
  • ১৮ বার পঠিত

রিপন কান্তি গুণ,নেত্রকোনা,বারহাট্টা প্রতিনিধি।

গত ২দিন ভারি বৃষ্টি না হওয়ায় নেত্রকোনার বিভিন্ন উপজেলায় বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। এখনও জেলার ৭৫টি ইউনিয়নে ৩৪২টি আশ্রয়কেন্দ্রে লক্ষাধিক মানুষ আছে। প্রায় ১২ লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে আছে। রাস্তাঘাট ও ঘরবাড়ি ডুবে থাকায় মানুষ বাড়িতে ফিরতে পারছে না। বন্যাকবলিত এলাকায় দেখা দিয়েছে, বিভিন্ন পানিবাহিত রোগ, বিশুদ্ধ পানি ও শিশু-খাদ্য সংকট। জেলায় বন্যায় এ পর্যন্ত পাঁচজনের প্রাণহানি হয়েছে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ৯৬টি মেডিকেল টিম গঠন করলেও বন্যার্ততের অনেকেই অভিযোগ করেছেন,এখনও তারা কোনো চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না। অন্যদিকে,ক্ষতিগ্রস্ত বানবাসি মানুষের অভিযোগ,প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হলেও শিশু-খাদ্যের কোন ব্যবস্থা করেনি প্রশাসন।

নেত্রকোনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহনলাল সৈকত বলেন,পানি কমছে,তবে ধীরগতিতে। এখনো উব্দাখালী নদীর কলমাকান্দা পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ৭৮ সেন্টিমিটারের ওপরে। ওই পয়েন্টে বিপৎসীমা ৬ দশমিক ৫৫ সেন্টিমিটার,ধনু নদের খালিয়াজুরি পয়েন্টেও বিপৎসীমার ৫২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। তবে দুর্গাপুরের সোমেশ্বরী, জারিয়ার কংসের পানি বিপৎসীমার অনেক নিচে আছে।

খালিয়াজুরি উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম জানান, উপজেলার প্রায় ৮৮ শতাংশ এলাকা পানিতে ডুবে আছে। এখনো বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে সাত হাজারের মতো মানুষ রয়েছে।

মদনে উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বুলবুল আহমেদ বলেন,পানি কিছুটা কমছে। সবচেয়ে বেশি বন্যাকবলিত গোবিন্দ্রশ্রী,তিয়শ্রী ও ফতেপুর ইউনিয়নের প্রায় ৮২ শতাংশ এলাকা পানির নিচে। রাস্তাঘাট, বাড়িঘর ডুবে থাকায় মানুষ আশ্রয়কেন্দ্র ছাড়ছে না।

আজ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ গণশুনানী করেন এবং গণশুনানীর মাধ্যমে সেবা-প্রত্যাশী জনগণের অভাব,অভিযোগ,আবেদন, নিবেদন শুনেন এবং তাৎক্ষণিকভাবে নিষ্পত্তিযোগ্য বিষয়সমূহ নিষ্পত্তির মাধ্যমে জনগণকে সেবা প্রদান করেন ও অন্যান্য বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা