1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৯:৪৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঝালকাঠিতে গ্রামীন ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার’র দূর্নীতির মামলায় ১০বছরের কারাদন্ড। তালতলী ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিজয়। কাহালুতে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে, বিনামূল্য সার বীজ বিতারন। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাহিত্য সম্মেলন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে লেখক হিসেবে সম্মাননা ক্রেস্ট পেল সাংবাদিক বাচ্চু। কেশবপুরের বাঁশবাড়িয়া বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন। নেত্রকোনার সুলতানকে দেখতে মানুষের ভিড়। জন্মনিবন্ধন সনদে অতিরিক্ত টাকা আদায়,সুবিদপুর উদ্যোক্তার সাথে স্থানীয় জনতার হাতাহাতি। কাহালুতে প্রাণী সম্পদ অফিসে খামারীদের মধ্যে গরু,ছাগল বিতরণ। প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে নিয়ে ব্রাসিলিয়ায় পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন উদযাপন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল অসহায় শিশু তানিশার দায়িত্ব নিলেন পুলিশ সদস্য জীবন মাহমুদ।

বরিশালের জাগুয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ নেতার ছেলেকে কুপিয়ে জখম

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৪২ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
বরিশাল সদর উপজেলার জাগুয়ায় স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার ছেলেকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি আমির হোসেন ওরফে আলম মাস্টারের ছেলে আরাফাত হোসেনকে (২২) বৃহস্পতিবার সকালে পশ্চিম চন্ডিপুর জামে মসজিদ এলাকায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ফেলে রেখে যায় একই এলাকার কতিপয় যুবক। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ছেলের ওপর হামলার কারণ হিসেবে আওয়ামী লীগ নেতা মাদক বিক্রির প্রতিবাদ করার কথা বললেও স্থানীয়রা জানিয়েছে, মেয়ে সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে স্থানীয় তোজাম্বর আলী মন্নানের ছেলে আক্তার হোসেন খোকা, মোসলেম হাওলাদারের জুয়েল হাওলাদার ও জিকু হাওলাদারের বিরোধ চলছিল। ধারণা করা হচ্ছে, এই বিরোধীয় জেরে যুবকের ওপর হামলা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে পশ্চিম চন্ডিপুর মসজিদের সম্মুখে সমবয়সি যুবকদের মধ্যে আকস্মিক সংঘর্ষ বাধলে পুরো এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় আমির হোসেন ওরফে আলম মাস্টারের ছেলে আরাফাত হোসেনকে রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এবং হামলাকারীরা ততক্ষণে পালিয়ে যায়। পরক্ষণে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালের নিয়ে যায়।

খবর পেয়ে কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও এই ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি।আমির হোসেন ওরফে আলম মাস্টার জানান, এলাকায় কতিপয় যুবক মিলে মাদকের একটি সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছে। এই বিষয়টি প্রতিবাদ করে আসছিল তার ছেলে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে মাদক কারবারীরা হামলা চালিয়ে কুপিয়ে ফেলে যায়।

তবে স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে, যাদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ করা হচ্ছে তারা আরাফাতের বন্ধু হিসেবে পরিচিত। শোনা যাচ্ছে, এলাকার একটি তুচ্ছ ঘটনাকে নিয়ে নিজেরা সংঘর্ষে জড়িয়েছে।

কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফয়সাল আহম্মেদ জানিয়েছেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু এর আগেই হামলাকারীরা পালিয়ে গেছে। এই ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা