মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
Logo বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের লেবুখালীতে নির্মিত পায়রা সেতু পরিদর্শণ। Logo বাংলাদেশের কোন জলাশয় অব্যবহৃত থাকবেনা, কলাপাড়ায় মৎস্যমন্ত্রী। Logo কলাপাড়ায় বড় মসজিদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে : আগামী সপ্তাহে তদন্ত প্রতিবেদন। Logo বরগুনায় আত্মপ্রকাশ হলো আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সাংবাদিক সংস্থার বরগুনা জেলা কমিটি। Logo মাদক বিক্রির অভিযোগ প্রতিবাদ করায় যুবকে মারধোর। Logo সাংবাদিক মঞ্জুরুল ইসলাম আর আমাদের মাঝে বেঁচে নেই। Logo ঝালকাঠিতে সত্তরার্ধ স্বামীহারা বৃদ্ধাকে ইউএনও’র খাদ্য, বস্ত্র সহায়তা। Logo বরিশালের হিজলায় জন্ম নিবন্ধনে নির্ধারিত ফি থেকে কয়েকগুণ বেশি টাকা নেয়ার অভিযোগ । Logo বাকেরগঞ্জে রাজনৈতিক দলের নেতাদের সাথে অপরাজিতাদের মতবিনিময় সভা। Logo তালতলীতে সাংবাদিকের উপরে হামলা,থানায় মামলা।

বরিশাল নগরীর তিন পয়েন্টে তীব্র যানজট, প্রয়োজন সুশৃঙ্খল ব্যবস্থাপনা

দৈনিক আলোকিত প্রভাত / ৩০ বার পঠিত
আপডেট সময় : শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৫:১১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক >> বিভাগীয় শহর বরিশাল নগরীতে যানজট এখন যেন নিত্যদিনের ঝঞ্জাট হয়ে দাঁড়িয়েছে। ব্যস্ততম এ নগরীর আমতলার মোড় থেকে চান্দু মার্কেট, সদর রোডের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে বিবির পুকুর পাড় ও নতুন বাজার মোড় এই তিন পয়েন্টের যানজটে নাকাল হয়ে পরেছে পুরো নগরবাসী।

তীব্র থেকে তীব্রতর এ যানজটের মূলে রয়েছে তিন চাকার যানের আধিক্য, সরু রাস্তা এবং মাস্টারপ্লানের বাস্তবায়ন না হওয়া। তবে এসব ব্যাপারে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। পাশাপাশি যানজট দূর করতে জনগণের সচেতনতা জরুরি বলে দাবি করেছেন স্থানীয় প্রশাসন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরীর উল্লেখিত তিন পয়েন্টে যানজটের প্রধান কারণ সরু রাস্তা। এছাড়া অতিরিক্ত হলুদ ইজিবাইকসহ অন্যান্য তিন চাকার যানচলাচলের কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। আমতলার মোড় থেকে চান্দুমার্কেট পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তায় যানজট সৃষ্টির পেছনে মাঝখানের সাগরদী ব্রিজও অন্যতম একটি কারণ। সরু এ ব্রিজ দিয়ে রাস্তার দু’পাশের যান চলাচলে দিনের প্রায় পুরোটা সময়ই সময়ক্ষেপণ করতে হয় যাত্রীদের। এছাড়া ব্রিজের ঢালেই (চান্দু মার্কেটের দিকে) ধান গবেষণা সড়কের সংযোগস্থল। ওইস্থানে যত্রতত্রভাবে ইজিবাইক থেকে যাত্রী ওঠানামা করায় সৃষ্টি হয় প্রতিদিনের যানজট।

অপরদিকে নগরীর মূল প্রাণকেন্দ্র সদর রোড। এখানকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকা থেকে বিবিরপুকুর পাড় পর্যন্ত এলাকাজুড়ে সরকারি-বেসরকারি অফিস, বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টার, শপিং মল এবং লঞ্চঘাট থেকে নগরীতে প্রবেশের মূলপথের সংযোগ স্থল (কাকলির মোড়) অবস্থিত। তবে এ জায়গার পুরো রাস্তার প্রশস্থতা নগরীর অন্য যেকোনো রাস্তার চেয়ে সরু। আর এ সরু রাস্তার মধ্যেই কাকলির মোড় থেকে বিবির পুকুর পাড় পর্যন্ত সড়কের মাঝ বরাবর ডাইভারশন (সড়ক বিভাজন) রয়েছে। বিভিন্ন দিক থেকে আসা চলন্ত যানবাহন ও অযথা পার্কিং করে রাখা গাড়িগুলোর সম্মিলন যানজটের সৃষ্টি করছে।

এছাড়া নগরীর নতুনবাজার মোড়ের (বিএম কলেজ থেকে জেলখানার মোড়ের অংশ) আধা কিলোমিটার জুড়ে কাঁচাবাজার, মাছের বাজার, মুদি বাজার ও অসংখ্য রেস্টুরেন্টের সমাহার। এর ওপর চলার পথ তুলনামূলক সরু। নগরীর সদর রোড থেকে জেলখানার মোড় হয়ে নথুল্লাবাদ ও বিএম কলেজ পর্যন্ত যাবার প্রধান সড়কও এটি। যে কারণে তিন চাকার যানের আধিক্যও এ সড়কে সবচেয়ে বেশি। এছাড়া পার্কিংয়ের জায়গা না থাকায় রাস্তার পাশেই ব্যক্তিগত গাড়ি রেখে বাজার করতে হয় সেখানকার নাগরিকদের। এতেও বৃদ্ধি পাচ্ছে যানজট।

নগরীর সচেতন ব্যাক্তিরা জানান যানজট সমস্যার মূলে রয়েছে প্রায় একযুগ আগে প্রস্তাবিত মাস্টারপ্লানের কার্যকর না হওয়া। তিনি বলেন, সারাদেশেই নগরায়নের হার বিগতদিনের চেয়ে বেশি। কিন্তু এই নগরায়ন যদি অপরিকল্পিত হয়, তবে যানজট সৃষ্টি হওয়া স্বাভাবিক। ২০১০ সালে নগরী উন্নয়নের মূল পরিকল্পনা (মাস্টারপ্লান) তৈরি করা হয়। সেখানে সাগরদী থেকে আমতলার মোড়, নতুন বাজার মোড় এবং সদর রোডের প্রশস্ততা বর্ধিতকরণসহ আরও বেশ কয়েকটি বিষয় উল্লেখ করা রয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিনে ওই মাস্টারপ্লান কার্যকরের তেমন কোন উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি।

তবে, যাত্রী ও পথচারীরা বলছে ভিন্ন কথা। নিষেধ থাকা সত্ত্বেও মাঝ রাস্তায় চলন্ত গাড়িতে যাত্রী তোলা, অতিরিক্ত যাত্রী বহন, রেষারেষি করে গাড়ি চালাতে গিয়ে জটলা তৈরি করে অহরহ যানজট সৃষ্টির নানা অব্যবস্থাপনার জন্য ফুটপাত দখলসহ ট্রাফিকের গাফিলতি ও চালকদের দায়ী করছেন তারা। অবৈধ পার্কিং বন্ধ করতে হবে। এতে অন্তত যানজট অসহনীয় ভোগান্তি থেকে কিছুটা মুক্তি পাব।

এদিকে যানজট নিরসনে বর্তমানে কি কি পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে জানতে চাইলে বরিশাল মেট্রোপলিটন ট্রাফিক পুলিশের উপ-কমিশনার বলেন, যানজট নিরসন ও মানুষের নিরাপদ চলাচলের ক্ষেত্রে ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা সবসময় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD