1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১১:৩৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কেশবপুরে কসাইয়ের ছুরিকাঘাতে পত্রিকা হকার গুরুতর আহত। কাহালুু উপজেলা মুরইল ইউনিয়ন তাঁতীলীগের এি- বাষিক সন্মেলন অনুষ্টিত। যশোরের কেশবপুরে উৎসবমূখর ও শান্তিপূর্ন পরিবেশে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। হিজলায় পিতৃপরিচয়ের ভয়ে গর্ভের সন্তানকে হত্যা। বরগুনা’য় মাদক দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার অপরাধে এলাকা বাসী ও ভূক্তভোগী পরিবারের মানববন্ধন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মুকুল বোসের প্রয়ানে শোক। যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী বিচারপতি কেতানিজ ব্রাউন জ্যাকসন শপথ গ্রহণ। ভারতে ভূমিধসে মৃত্যু বেড়ে ৮১, নিখোঁজ অনেকে জুনে ধর্ষণের শিকার ৭৬ বাকেরগঞ্জে গৃহবধূর রহস্যজনক ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার।

বাকেরগঞ্জ শ্রীমন্ত নদী বন্ধ করে বাল্কহেড দিয়া বালু ভরাট, নদীর উপরে ড্রেজারের পাইপ।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২০ নভেম্বর, ২০২১
  • ১২১ বার পঠিত

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি:খান মেহেদী
বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের রহমগঞ্জ বাজার সংলগ্ন বাকেরগঞ্জ টু বরগুনা সড়কের পশ্চিম পাশে নির্মাণাধীন বাকেরগঞ্জ ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিট উপকেন্দ্রে ড্রেজার দ্বারা বালু ভরাট এর কাজ চলমান। চলমান বালু ভরাট এর কাজটি পেয়েছেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান পন্ডিত এন্টারপ্রাইজ। পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ এর অধীনে বাকেরগঞ্জ গ্রীড উপকেন্দ্রে বালু ভরাট এর কাজটি করছেন ড্রেজার মালিক বরিশালের বিএনপি নেতা ফিরোজ।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, কালিগঞ্জ বাজারের পূর্ব পাশে শ্রীমন্ত নদীর মধ্যে একটি ৬ ইঞ্চি পাইপের অপরটি ১০ ইঞ্চি পাইপের দুইটি আনলোড ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। ড্রেজার দুটিতে
অবৈধ বাল্কহেডের চলাচল বৃদ্ধির বিষয়টি উদ্বেগজনক। দেখা গেছে, নির্বিঘ্ন ও বেপরোয়া চলাচলের সুযোগ পাওয়ায় বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়ছে শ্রীমন্ত নদীর দুই পাশের বসত বাড়ির লোকজন। ভাঙ্গনের কবলে পড়ছে বসতবাড়ি, চাষাবাদের জমি, ভেরি বাধঁ।

ভরপাশা ইউনিয়ন এর বাসিন্দা মালেক জানান, পায়রা নদী হয়ে কালিগঞ্জ পর্যন্ত শ্রীমন্ত নদীর উপরে ৪ টি আয়রন ব্রিজ রয়েছে। এই ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার হাজার লোকজন চলাচল করে। ভরপাশা, পাদ্রিশিবপুর, রঙ্গশ্রী তিন ইউনিয়নের সাথে যোগাযোগের সহজ পথ এই ব্রীজ। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন বালু ভরাট একটি বাল্কহেড আজ শনিবার দুপুরে ভরপাশা সমিতিঘর বাজার সংলগ্ন ব্রীজের সাথে ধাক্কা লাগে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার ঘটতে পারে। এ অবস্থায় আয়ন ব্রীজগুলো ঝুঁকিমুক্ত করতে অবৈধ বাল্কহেডের অবাধ চলাচল বন্ধের পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরি বলে মনে করেন ইউনিয়ন বাসি।

পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানান, শ্রীমন্ত নদী দিয়ে নৌপথে নৌকা, টলারে পৌরসভার কয়েকটি ওয়ার্ডে কোনো পন্য সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না। নদীর মধ্যে বাঁশ দিয়ে ড্রেজারের পাইপ দিয়ে নদীটি বন্ধ করে রাখা হয়েছে। অথচ বাকেরগঞ্জের প্রাণকেন্দ্র বাকেরগঞ্জ বন্দর হতে পায়রা নদীতে নৌপথে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এই শ্রীমন্ত নদীটি।

ড্রেজার মালিক ফিরোজের সাথে যোগাযোগ করার জন্য বার বার ফোন করা হলেও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাকেরগঞ্জ এলজি আইডি প্রকৌশলী আবুল খায়ের মিয়া জানান, শ্রীমন্ত নদীর সরু পথে আয়রন ব্রীজ গুলোর নিজদিয়ে ভারী নৌযান চলাচল নিষিদ্ধ। তবে কেউ যদি আইনকানুনের তোয়াক্কা না করে বাল্কহেড ব্যবহার করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরো জানান, প্রথমিক ভাবে ভরপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বরাবর চিঠি দেয়া হয়েছে অবৈধ নৌযান চলাচল বন্ধে। তিনি ব্যর্থ হলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো

ভরপাশা ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান আশ্রাফুজ্জামান খোকন জানান, আমি একটি চিঠি পেয়েছি শ্রীমন্ত নদী দিয়ে কোন ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ নৌযান চলাচল করলে ড্রেজার মালিকদের সাথে শীঘ্রই আলোচনা করে অবৈধ বাল্কহেড বন্ধ করা হবে।

জানা গেছে, স্থানীয়ভাবে ‘ভলগেট’ নামে পরিচিত এসব নৌযানের বৈধ কোনো কাগজপত্র নেই। সরকারকে ভ্যাট ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে নিষিদ্ধ ভলগেট ব্যবহার করছে প্রভাবশালী সিন্ডিকেট।

ভুলে গেলে চলবে না, বাল্কহেডগুলো তৈরি করা হয় মূলত নদীপথে বালু বহনের জন্য। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, কোনো নৌযান নদী পথে চলতে হলে তাতে দক্ষ ও সার্টিফিকেটধারী মাস্টার থাকতে হবে। অথচ এ সব ভলগেটগুলো প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে ব্যবসা করে যাচ্ছে।

কিন্তু শ্রীমন্ত নদীতে অবৈধভাবে চলাচলকারী বাল্কহেডগুলোয় দক্ষ কোনো জনবল নেই। তাছাড়া বালু বোঝাইয়ের পর বাল্কহেডগুলোর প্রায় পুরো কাঠামো পানিতে নিমজ্জিত হয়ে পড়ায় চলাচলের সময় শুধু ইঞ্জিনের দিককার সামান্য অংশ পানির উপরে ভেসে থাকে নিচের অংশ দৃশ্যমান না হওয়ায় আয়রন ব্রীজের পিলারের সাথে সংঘর্ষ লেগে দুর্ঘটনার আশঙ্কাও বহুগুণ বেড়ে যাচ্ছে।

প্রভাবশালীরা ক্ষমতার দাপটে কালিগঞ্জ বাজারের আয়রন ব্রিজ এর উত্তর পাশে বাঁশ দিয়ে শ্রীমন্ত নদী পথ বন্ধ করে দুটি ড্রেজারের পাইপ ব্যাবহার করছে। তবে এই গুরুত্বপূর্ণ নদী সার্বক্ষণিকভাবে সচল রাখার পাশাপাশি একে ঝুঁকিমুক্ত রাখাও জরুরি। সুবিধাবাদী কোনো গোষ্ঠীর স্বার্থ রক্ষায় শ্রীমন্ত নদীতে অবৈধ কোনো বাল্কহেড যাতে চলাচল করতে না পারে ও নদীর বাধঁ দুটি খুলে দেয়া হয় এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের তৎপর হওয়া প্রয়োজন। বলার অপেক্ষা রাখে না, সাধারণ মানুষের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে মহলবিশেষের অবৈধ কর্মকাণ্ডে কয়েকটি ইউনিয়নের অচলাবস্থা সৃষ্টি হলে এর দায় স্থানীয় প্রশাসন এড়িয়ে যেতে পারবে না।

কালিগঞ্জ বাজার ও ভরপাশা ইউনিয়নের বাসিন্দারা জানান, অবৈধ বাল্কহেড ও নদী পথ সার্বক্ষণিকভাবে সচল রাখার ক্ষেত্রে উপজেলা প্রশাসন কঠোর মনোভাবে পরিচয় দেবে, এটাই প্রত্যাশা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা