শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
Logo বরিশাল তরুণ সাংবাদিক ফোরামের সাধারন সভা অনুষ্ঠিত। Logo বাংলাদেশ হস্তশিল্প এসোসিয়েশনের উদ্যোগে নেত্রকোণায় শীতবস্ত্র বিতরণ। Logo কাহালু প্রেসক্লাবে ৫ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন। Logo নতুন অতিথি। Logo বারহাট্টায় বাংলাদেশের বীর সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ। Logo কাহালুতে দৈনিক ভোরের দর্পণ পত্রিকার ২১ তম বর্ষপূতি উপলক্ষে কেক কর্তন ও আলোচনা সভা। Logo ঝালকাঠি শহরে গভীর রাতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে চাঁদা দাবীর অভিযোগে যুবক আটক। Logo দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকাসহ কিছু অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ। Logo ঝালকাঠির নবগ্রামে বসত বাড়ির চলাচলের পথে পাকা স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ। Logo ইএসডিও সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট (এসইপি) আবাসিক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত।

ভালো নেই নিন্ম আয়ের মানুষ

দৈনিক আলোকিত প্রভাত / ৯৩ বার পঠিত
আপডেট সময় : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১, ৩:০৫ অপরাহ্ণ

মেহেদী তামিম :: মহামারী করোনা ভাইরাস ( কোভিড ১৯) শুধু মানুষের জীবনই কেড়ে নেয়নি,নিয়েছে মানুষের রুটি, রুজি রোজগার করার উপায়ও।সমগ্র বিশ্বের চলমান কর্ম যেমন আজ মহামারী করোনা ভাইরাস থামিয়ে দিয়েছে, তেমনি তার আঁচড় বাংলাদেশ তথা বরিশালেও পড়েছে।কঠোর পরিশ্রম করা মানুষ গুলো আজ হঠাৎ স্টক করা রোগীর মত থেমে গেছে। হাত, পা ঠিকই আছে কিন্তু কর্মে প্রয়োগ করতে পারেনা।মানুষের হাত,পা বেঁধে রাখা যায় কিন্তু ক্ষুধা বেঁধে রাখা যায় না।ক্ষুধার জ্বালা মেটানোর জন্য মানুষের কোন না কোন কর্ম করতে হয়।কিন্তু করোনা ভাইরাস কঠোর লকডাউন এর কারনে মানুষ ঠিক মত কর্ম করতে পারেনা।সরকারি বিধি নিষেধ অনুযায়ী দেয়া হয়েছে কর্মের সময়সীমা। তার ভিতরে আবার বেচা বিক্রী নেই। এরই প্রকোপ পরেছে ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ীদের উপর। বরিশালের বিভিন্ন বাজারঘাট ঘুরে দেখা যায় ভালো নেই ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ীরা।পোর্ট রোডের কাঁচামালের ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী দুলাল কে জিজ্ঞেস করা হলো আপনার ব্যাবসার কি অবস্থা করোনার ভিতরে? তিনি এক দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে বললেন বাবা ব্যাবসার অবস্থা খুবই খারাপ। তারপরও পেটের দ্বায়ে করোনার ঝুঁকি নিয়ে আসছি।নইলে খামু কি।আমার পরিবারে ৫ জন সদস্য সবাইরেই আমার দেখতে হয়।তার ভিতরে আবার বাসা ভাড়া। পলাশপুরে ৪০০০ টাকা দিয়ে বাসা ভাড়া থাকি,করোনার কারনে ৪ মাস পর্যন্ত বাসা ভাড়া দিতে পারিনায়।করোনার আগে আল্লায় ভালোই রাখছিল দৈনিক ৬০০-৭০০ টাকাও কামাই করছি, আর এখন আবার সরকার করোনার কারনে বেচা বিক্রীর সময় নির্ধারণ করে দিয়েছে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত তাই কোনদিন ২০০ ও হয় আবার কোনদিন ২৫০ হয়।বাবা আমাগো এখন নুন আনতে পান্তা ফুরায়। একই কথা বলেছেন পাশের ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী মনির। জানিনা বাবা করোনা দেশ থেকে কবে যাইবে আর আমরা আবার কবে ঠিক মত বেচা কিনা করতে পারমু।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD