1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০২:০২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নবাগত ওসির সাথে রুহিয়া থানা প্রেসক্লাবের সদস্যদের সৌজন্য সাক্ষাৎ ও মতবিনিময় সভা। একজন তরুণ হাফেজের বেঁচে থাকার জন্য আর্থিক সাহায্যের আকুল আবেদন। ঝালকাঠিতে গ্রামীন ব্যাংকের ব্রাঞ্চ ম্যানেজার’র দূর্নীতির মামলায় ১০বছরের কারাদন্ড। তালতলী ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর বিজয়। কাহালুতে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে, বিনামূল্য সার বীজ বিতারন। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাহিত্য সম্মেলন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে লেখক হিসেবে সম্মাননা ক্রেস্ট পেল সাংবাদিক বাচ্চু। কেশবপুরের বাঁশবাড়িয়া বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন। নেত্রকোনার সুলতানকে দেখতে মানুষের ভিড়। জন্মনিবন্ধন সনদে অতিরিক্ত টাকা আদায়,সুবিদপুর উদ্যোক্তার সাথে স্থানীয় জনতার হাতাহাতি। কাহালুতে প্রাণী সম্পদ অফিসে খামারীদের মধ্যে গরু,ছাগল বিতরণ।

মাদ্রাসায় আয়া নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৯ মার্চ, ২০২২
  • ২১৬ বার পঠিত

হিজলা প্রতিনিধি।
বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার কাজিরহাট থানায় পূর্ব আন্ধারমানিক ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা আয়া নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ।

১১ ফেব্রুয়ারী বিকাল ৩ টায় বরিশাল সাগরদি ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় ৭ জন প্রার্থী মধ্যে অনুপস্থিত তিনজন,বাকি চারজন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। অংশগ্রহণকারীরা হলেন ফারজানা বেগম, শাহানাজ আক্তার,সোনিয়া আক্তার ও মোসাম্মৎ নার্গিস বেগম।

এই চারজনের মধ্যে ফারজানা লিখিত ২০ নম্বরের মধ্যে ১০ পেয়েছে মৌখিক ১০ নম্বরের মধ্যে পেয়েছে ৬ মোট ১৬ নাম্বার। শাহানাজ আক্তার লিখিত ২০ নম্বরের মধ্যে সাড়ে ১৭ মৌখিক ১০ নম্বরের মধ্যে সাড়ে ৮ মোট ২৬‌।

সোনিয়া আক্তার লিখিত ২০ এর মধ্যে ১২ মৌখিক ১০ এর মধ্যে ৮ মোট ২০। মোসাম্মৎ নার্গিস বেগম লিখিত ২০ নম্বরের মধ্যে ২ মৌখিক ১০ নম্বরের মধ্যে ৫ মোর ৭।

অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২৬ নাম্বার পেয়ে শীর্ষে রয়েছে শাহানাজ আক্তার। আয়া পরীক্ষার মূল্যায়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মৌখিকভাবে শাহানাজ আক্তার কে নির্বাচিত করে।

পরীক্ষার মূল্যায়ন বোর্ডে যারা ডিজি প্রতিনিধি, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, অত্র মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সভাপতি এবং গভর্নিং বডির আরো কয়েকজন সদস্যের উপস্থিতিতে মেধাতালিকায় সর্বোচ্চ নাম্বার পাওয়া শাহানাজ আক্তার কে মৌখিকভাবে প্রথম স্থান অধিকারী হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

দীর্ঘ ২৭ দিন পেরিয়ে গেলেও শাহানাজ আক্তার এখনো নিয়োগপত্র হাতে পায়নি,ঘুরছে মাদ্রাসার সভাপতি ও সুপার এর ধারে।

এদিকে নির্বাচিত শাহানাজ আক্তার কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে বলেন পূর্ব আন্ধারমানিক ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার জমিদাতাদের কয়েক জনের মধ্যে আমার বাবা অন্যতম। সেই অধিকার আমি চাইনা আমি চাই মেধাতালিকায় আমি নির্বাচিত হয়েছি আমাকে নিয়োগ দেয়া হোক। তিনি আরো বলেন আমার নিকট থেকে মাদ্রাসার সুপার মাওলানা জাকির হোসেন ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সেলিম হাওলাদার মাদ্রাসা কৃষি শিক্ষক রেজাউল এর মাধ্যমে এক লক্ষ টাকা নিয়োগের জন্য দাবী করে আমি তা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আমার নিয়োগ নিয়ে গড়িমসি করছে।

মাদ্রাসা সুপার মাওলানা মোঃ জাকির হোসেন নিয়োগ পরীক্ষা ও শাহানাজ আক্তার সর্বোচ্চ ২৬ নাম্বার পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে সত্যতা স্বীকার করে তিনি বলেন কেন নিয়োগ দেয়া হচ্ছে না এ বিষয়ে গবর্নিং বডির সভাপতি ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ভালো জানেন।

মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার তপন কুমার দাস বলেন বিভিন্ন মাধ্যমে নিয়োগ বাণিজ্য সংবাদ আমাদের কাছে এসেছে যার কারণে সাময়িকভাবে নিয়োগ স্থগিত রাখা হয়েছে।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সেলিম হাওলাদার বলেন নিয়োগ সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নিয়োগ দেয়া হবে।

ডকুমেন্ট সংযুক্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা