1. admin@dailyalokitoprovat.com : admin :
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১০:৩৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কেশবপুরে কসাইয়ের ছুরিকাঘাতে পত্রিকা হকার গুরুতর আহত। কাহালুু উপজেলা মুরইল ইউনিয়ন তাঁতীলীগের এি- বাষিক সন্মেলন অনুষ্টিত। যশোরের কেশবপুরে উৎসবমূখর ও শান্তিপূর্ন পরিবেশে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। হিজলায় পিতৃপরিচয়ের ভয়ে গর্ভের সন্তানকে হত্যা। বরগুনা’য় মাদক দিয়ে ধরিয়ে দেয়ার অপরাধে এলাকা বাসী ও ভূক্তভোগী পরিবারের মানববন্ধন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মুকুল বোসের প্রয়ানে শোক। যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী বিচারপতি কেতানিজ ব্রাউন জ্যাকসন শপথ গ্রহণ। ভারতে ভূমিধসে মৃত্যু বেড়ে ৮১, নিখোঁজ অনেকে জুনে ধর্ষণের শিকার ৭৬ বাকেরগঞ্জে গৃহবধূর রহস্যজনক ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার।

মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি ও মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন চান বরিশালের সুলতান মোল্লা।

দৈনিক আলোকিত প্রভাত
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২২ জুন, ২০২২
  • ১০ বার পঠিত

বরিশাল অফিস।
জীবনের শেষ বয়সে এসে মৃত্যুর আগে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি ও মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন চান বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার মোঃ সুলতান মোল্লা। মাতৃভূমি রক্ষায় জীবন বাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু স্বাধীনতার ৫০ বছরেও মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় ঠাঁই হয়নি তার। উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নের বাহেরচর ঘোষকাঠী গ্রামের মৃত মোঃ জল্লাদ মোল্লার ছেলে আবদুল মান্নান মুক্তিযুদ্ধে ৯ নম্বর সেক্টরে লড়াই করেন।

তৎকালীন সশস্ত্র বাহিনীর অধিনায়ক আতাউল গণী ওসমানীর স্বাক্ষরিত দেশরক্ষা বিভাগের স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদ, ৯নং সেক্টরে মেজর জলিলের নেতৃত্বে ভারতে নেওয়া ট্রেনিং এর সনদ,মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শাহজাহান সিকদারের দেয়া প্রত্যায়ন ও অসংখ্য সহ যোদ্ধারা জীবিত থাকা সত্ত্বেও তিনি পাচ্ছেন না স্বীকৃতি। মুক্তিযোদ্ধা সুলতান মোল্লা জানান,মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য ২০১৩ সালের ৬ নভেম্বর অনলাইনে আবেদন করেন। যাচাই বাছাইয়ে সব কাগজপত্র ও স্বাক্ষীগন ঠিক থাকা স্বত্তেও তার নাম “খ” তালিকায় রাখা হয়েছে। বয়সের ভারে এখন অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছেন সুলতান মোল্লা । তারপরও হাল ছাড়ছেন না। মৃত্যুর আগে শুধু মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতিটুকু পাওয়ার আশায় ঘুরছেন বিভিন্ন অফিসের দপ্তরে। এরই মধ্যে তিনি মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়েও গিয়েছেন। সুলতান মোল্লা আক্ষেপ করে বলেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নিয়েছি। দিনের পর দিন না খেয়ে সম্মূখ যুদ্ধ করেছি। তবুও নিজের স্বীকৃতিটা পাচ্ছি না। অথচ আমাদের সামনেই অনেক ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা সরকারি ভাতা নিচ্ছেন। সরকারি সুযোগ সুবিধা ভোগ করছেন। আর আমরা প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হয়েও আজ ছেলে মেয়ে পরিবার নিয়ে অসহায় দিন কাটাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর ডাকে স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পরেছিলাম। এখন আমরাই স্বাধীনতা ভোগ করতে পারছি না। বাবুগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আঃ করিম হাওলাদার জানান, সুলতান মোল্লা একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু ২০১৭ সালে মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই কালে সঠিক কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও সে সঠিকভাবে উপস্থাপন করতে না পারায় তাকে ‘খ’ তালিকায় রাখা হয়েছে। বাবুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আমীনুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে ‘খ’ তালিকাভুক্তদের নিয়ে সরকারের কোন কার্যক্রম চলমান নেই। তার প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলে আবেদন করতে পারেন। মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল থেকে কোন নির্দেশনা আসলে সে মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা